পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

1. সরকারি নীতিমালা মোতাবেক ভর্তিকৃত ছাত্র-ছাত্রীর ৭০% ভাগ ছাত্র-ছাত্রীকে উপবৃত্তির অর্থ প্রদান করা হয়।

2. উপবৃত্তি অর্থ বিতরণ সংক্রান্ত নির্দেশাবলীঃ-

ক) দরিদ্র পরিবারঃ- দরিদ্র পরিবার বলতে নিম্মোক্ত শ্রেণিভূক্ত পরিবারকে বুঝাবেঃ

* দুস্থ বিধবা মহিলার পরিবার

* দিনমজুর

* অস্বচ্ছল চাকরীজীবি, অস্বচ্ছল পেশাজীবি

* ভূমিহীন

* অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ছাত্র-ছাত্রীর পরিবার

* অস্বচ্ছল উপজাতী ছাত্র-ছাত্রীর পরিবার

খ) উপবৃত্তি প্রাপ্তির শর্তাবলীঃ-

* তালিকাভূক্ত দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীকে মাসে যুক্তিযুক্ত কারণ ব্যতীত কমপক্ষে ৮৫% পাঠদিবসে বিদ্যালয়ের উপস্থিত থাকতে হবে। তবে পাহাড়ী এলাকার শিক্ষার্থী এবং প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ৭৫% হতে হবে।

* তালিকাভূক্ত (১ম শ্রেণি ব্যতীত) সকল শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীকে বার্ষিক পরীক্ষায় গড়ে ৪০% নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

* সুবিধাভোগী যে সব ছাত্র-ছাত্রী যুক্তি সং&গত কারণ ব্যতীত বিদ্যালয়ে নির্ধারিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন না তাদের পরবর্ত্তী পরীক্ষা পর্যন্ত উপবৃত্তি স্থগিত রাখা হবে।

* কোন অনুকুল আবহাওয়ার দিনে পরিদর্শনকালে মোট ছাত্র-ছাত্রীর ৬০% এর কম উপস্থিতি দেখা গেলে। উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার উপস্থিতি বৃদ্ধির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন।

* যৌথ কার্ডধারী দুইজন ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে যদি একজন ছাত্র-ছাত্রী উপবৃত্তি প্রাপ্তির শর্তাবলী ভঙ্গ করে তবে অপরজন একক কার্ডধারী হিসেবে সুবিধা পাবে।

গ) উপবৃত্তির মাসিক হারঃ- এই কর্মসূচি আওতায় দরিদ্র পরিবারের একক সন্তানকে মাসিক ১০০/- এবং যৌথ পরিবারের সন্তানকে মাসিক ১২৫/- হারে উপবৃত্তি প্রদান করে থাকে। 


Share with :

Facebook Twitter